ফিরে আসা অভিবাসীরা কেন ব্যবসায় যেতে ভয় পান……

Posted by on Jun 15, 2021 in Blog | 10 comments

কোভিড-১৯ সময়কালীন বিদেশ ফেরত অভিবাসীদের স্বনির্ভর করতে রামরু টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলায় বিভিন্ন বিজনেজ মডেল প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনা করছে। এই উদ্দেশ্যে রামরুর একটি বিশেষজ্ঞ দল সরেজমিনে জরিপে কালিহাতী উপজেলায় যায়। জরিপে দেখা যায় যে সেখানে ব্যবসার ক্ষেত্রে গতানুগতিক পোলট্রি ফার্ম ও দেশি মুরগীর ব্যবসা, গরুর ফার্ম ও গরু পালন ব্যবসা, তাঁত শিল্প এবং মিষ্টির ব্যবসা ছাড়াও সময় উপযোগী এবং ভিন্নধর্মী নানারকম ব্যবসা যেমন বেকারি ব্যবসা, বিউটি পার্লার, ফ্লোটিং সবজি ও কেইজিং মাছ চাষ ইত্যাদির প্রচুর সুযোগ আছে।

কিন্তু, কালিহাতী উপজেলায় অভিবাসীরা তাদের নিজস্ব ব্যবসা প্রতিষ্ঠার ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও নানান প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হচ্ছেন। ব্যবসার পর্যাপ্ত মূলধন ও আনুষঙ্গিক সহায়তার অভাব, প্রয়োজনীয় অভিজ্ঞতা ও প্রশিক্ষণের অভাব, ব্যাংকে লোন প্রাপ্তির ক্ষেত্রে বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হওয়া এবং চরম ভোগান্তি, সর্বোপরি জলবায়ু পরিবর্তন ও পরিবেশগত সচেতনতার অভাব ইত্যাদি এই সরেজমিনে জরিপে প্রকাশ পায়। এছাড়াও এগুলোর মধ্যে আরেকটি উল্লেখযোগ্য সমস্যা হলো ব্যবসার ক্ষেত্রে নারীর ক্ষমতায়ন ও অংশগ্রহণের অভাব। এই প্রতিবন্ধকতাগুলোকে বিবেচনায় রেখে অবিলম্বে উপযুক্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করা এখন সময়ের দাবি।

10 Comments

  1. অভিবাসীদের এমন ধারণা থাকে যে তাদের ব্যবসায়িক অভিজ্ঞতা নেই এবং ব্যবসায় লোকসান এর ঝুঁকি থাকে| ফিরে আসে অভিবাসীদের যদি ব্যবসায় লাভ নিশ্চিত করা যায় তবে অধিকাংশই ব্যবসায় ভয় পাবেনা |

  2. ফিরে আসা অভিবাসীদের মধ্যে একটি বিশেষ অংশ হচ্ছে নারী কিন্তু তাদের আয় উপার্জনের তেমন কোন সুযোগ সুবিধা নেই। অতএব, তাদের আত্মনির্ভরশীল করে গড়ে তুলতে পারলেই রামরুর পরিকল্পনাটি পূর্ণতা অর্জন করবে।

  3. বিদেশ ফেরত অভিবাসীদের বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা পরিচালনার উপর প্রশিক্ষণ প্রদান সেই সাথে পণ্য বিক্রির জন্য বাজার বিশ্লেষন সম্পর্কে সম্মক ধারণা প্রদান করা। এতে যেকোন ধরণের ব্যবসায়িক ঝুঁকি অনেকাংশে কমিয়ে আনা যায়।

  4. আমার মনে হয়, অভিজ্ঞতা এবং প্রশিক্ষণের অভাবের পাশাপাশি সঠিক পরামর্শের অভাবেও ভোগেন ফিরে অভিবাসীরা। কোন কোন ব্যবসা লাভজনক, কি উপায়ে ব্যবসা করলে লোকসানের সম্ভাবনা নেই, উক্ত ব্যবসার টার্গেট মার্কেট বা কাস্টোমার কারা হবেন ইত্যাদি বিষয়ে তাদের সঠিক পরামর্শ দিলে উনারা ব্যবসায়ের প্রতি আরো আগ্রহী হবেন বলে মনে করি।

  5. ফিরে আসা অভিবাসীদের অনেকেই আবার প্রথমেই বেশি পুজি বিনিয়োগ করে বড় পরিসরে ব্যবসা শুরু করতে চান। তারা ছোট কোন ব্যবসা করতে লজ্জাবোধ করেন। ব্যবসায় লাভ হবে কিনা,,অভিজ্ঞতা আছে কিনা এগুলোর চেয়ে পরিবার বা সমাজের লোক কি মনে করবে এটা বেশি গুরুত্ব দেন। আমার পরিচিত একজন অভিবাসী কে বলতে শুনেছি কম করে হলেও ১০ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করে ব্যবসা করবেন ভাবছেন কিন্তু কোন ব্যাংক এত টাকা দিচ্ছেনা ফলে ব্যবসা ও শুরু করতে পারছেন না।

  6. ব্যাংক লোনের কথায় যদি ধরি তাহলে মাঠ পর্যায়ের তথ্য অনুযায়ী প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক সম্প্রতি বিদেশ ফেরত আসা অভিবাসী শ্রমিকদের জন্য যে ৩০০ কোটি টাকার মাত্র ৪% সুদের লোন চালু করেছে তা নিয়ে ওই এলাকায় অনেক বিভ্রান্তি রয়েছে। যারা লোন নিতে গেছে প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকের এরিয়া ব্রাঞ্চ অফিসে তাদের লোনের কাগজপত্র নিয়ে অনেক ঘুরানো হয় কিন্তু কোন সঠিক দিক নির্দেশনা দেয়া হয় না, আবার কেউ কেউ যদি সব কাগজপত্র ঠিক ভাবে নিয়েও আসে তারা ঘুষ দূর্নীতির স্বিকার হয় । এই রকম অভিজ্ঞতার কারণে এলাকায় অন্য অনেকের মনেও এই প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক নিয়ে বেশ নাকারাত্মক ধারণা গড়ে উঠেছে। এখন, কেউ ব্যবসা করতে চাইলে এনজিও, বেশি সুদে অন্য ব্যাংক বা সুদের ব্যপারির কাছে যাচ্ছে।

    • আমি প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকে জব করি এবং আমার বাড়ি কালিহাতী, পোস্টিং ঘাটাইল শাখায়। আমাদের শাখা ১ মার্চ উদবোধন করা হয়। লোকবল মাত্র তিনজন, একটা কম্পিউটার। এই রিসোর্স নিয়ে আমরা গত চার মাসে ৪ কোটি ৪৪ লক্ষ টাকা ঋণ বিতরণ করেছি। করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ অভিবাসী কর্মী যারা ইতোমধ্যে ব্যবসা শুরু করেছেন বা করবেন এমন ৪২ জন ঋণ গ্রহীতাকে ১ কোটি ২৬ লক্ষ টাকা ঋণ বিতরণ করেছি। যে মন্তব্যটি আপনি করেছেন তা যে একদম ভুল তা আমি বলছি না। তবে প্রবাসী কর্মী ও আমাদের মধ্যে একটা কমিউনিকেশন গ্যাপ আছে। তাঁরা মনে করেন যে তাঁদের পাসপোর্ট হলেই সব হবে, বা বিদেশের মত দেশেও সব কিছু স্মোথ হবে। কিন্তু আমরা কি এখনো বিদেশী লেভেলের সার্ভিস দিতে পারবো! না আছে লোকবল, না আছে টেকনিক্যাল সাপোর্ট। আর প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের বিষয়টা মন্ত্রণালয়ের বিষয়। তবে এখন অনেক কিছুই সহজীকরণ করা হয়েছে। দুই একজন গ্রাহক হয়তো নানা কারণে হয়রানীর স্বীকার হয়েছেন কিন্তু ঘুষ না অন্য কিছুর কথা বললে সেটা ভুল হবে। আমি দ্বায়িত্ব নিয়ে বলছি গত চার মাসে টাংগাইল শাখা ও আমার শাখায় কেউ এক টাকা ঘুষ দিয়েছেন এমন অভিযোগ করতে পারবেন না। ধন্যবাদ।

      • “আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ কামরুল হাসান ভাই, আপনার মূল্যবান মন্তব্যটি প্রকাশ করার জন্য। রামরু বিগত দুই দশক ধরেই বাংলাদেশের অভিবাসীদের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। আমরা চাই মাঠ পর্যায় থেকে সর্বোচ্চ সঠিক তথ্য টি তুলে ধরতে তাই আপনার এই মতামত আমাদের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আমার উপোরোক্ত Blog এবং মন্তব্যটি সম্পূর্ণ টাঙ্গাইল জেলার কালীহাতিতে করা জরিপের থেকে অভিবাসীদের মতামতের ভিত্তিতে লেখা। প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক অভিবাসী শ্রমিকদের জন্য যে স্বল্প সুদে ঋণের উদ্যোগ নিয়েছে তা বাস্তবিক অর্থে একটি মহৎ এবং প্রশংসনীয় কাজ, হয়ত কোন ভুল বোঝাবুঝি বা একটি দুটি অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার কারণে মানুষের মনে এই বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। আশা করছি এটি দু-একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনার মত যা যেকোন প্রতিষ্ঠানে ঘটতে পারে এবং আমার দৃঢ় বিশ্বাস এই ধরনের ছোটখাটো সমস্যাগুলোর অচিরেই সমাধান হয়ে যাবে।

  7. এখানে অনেক factors কাজ করে। প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক বাস্তবিক অর্থে একটি মহৎ উদ্দেশ্য নিয়ে এই লোনের প্রকল্প গ্রহণ করেছে যা প্রশংসনীয়। মাত্র ৪% সুদে কোন মডগেজ ছাড়া সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকার লোন অন্য কোন ব্যাংক চিন্তাও করবে না কিন্তু তারা এটা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। দেশের একটি বড় জনগোষ্ঠীকে স্বাবলম্বী করতে এবং দেশে বেকারত্বের হার কমাতে তাদের এই উদ্যোগ সত্যিই অভাবনীয়। তবে ঐ যে কথায় বলে না “চাঁদের ও কলংক থাকে” বিষয়টা হয়ে গেছে সেরকম। তাদের কিছু কিছু মাঠ পর্যায়ের শাখাগুলোতে এই অনৈতিক ও দূর্নীতি পরায়ন আচরণের জন্য তাদের এই মহৎ উদ্যোগটি সেভাবে সফল হতে পারছে না। এখানে সমস্যা সমগ্র প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক এর না বরং ওই সকল মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা কর্মচারীদের নৈতিকতার। তাই তাদের উচিত ঐ সব শাখার প্রশাসনিক ব্যাবস্থাপনা গুলো খাতিয়ে দেখা ও প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা। নইলে আজ কালিহাতী উপজেলার মানুষ নিরুৎসাহিত হচ্ছে, কাল সম্পূর্ণ টাঙ্গাইল জেলা পরশু ঢাকা বিভাগ একসময় সমগ্র বাংলাদেশে এই দূর্নাম ছড়িয়ে পরতে পারে এবং তাদের এই মহৎ উদ্যোগটি মুখ থুবড়ে পরতে পারে।
    এই বিষয়টি কিন্তু নতুন না, অনেক বড় বড় প্রতিষ্ঠান এমনকি BRAC এর মত প্রতিষ্ঠানের এরিয়া ব্রাঞ্চ অফিসেরও সমস্যা আছে যার কারণে আমরা অনেক project ই বন্ধ হতে দেখেছি বা শুনেছি।

  8. বিদেশ থেকে ফিরে গার্মেন্টস কারখানা দিয়েছি, বর্তমানে একদিকে পুঁজির shortage অন্যদিকে বাজার নিয়ন্ত্রনে প্রতিকুলতা – এখন যে কি করি?
    Skygetway Fashion
    Narsingdi Sadar
    01793518877

Leave a Reply to Arif Rahman Cancel reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>